বাংলার মাটিতে আমি আর আ’সবো নাঃ প্রবাসী জামিলা

যুক্তরাজ্যে সন্তানদের রেখে আমার অ’সুস্থ বাবাকে দেখতে আসে প্রবাসী জামিলা। গত বুধবার বাংলাদেশ বিমানের (বিজি-২০১) সিলেট-লন্ডন সরাসরি ফ্লাইটে যুক্তরাজ্য যাওয়ার কথা ছিল জামিলা চৌধুরীর। সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কর্মকর্তাদের হাতে হ’য়রা’নির শি’কার হয়ে ফ্লাইট মিস করা প্রবাসী নারী জামিলা।

হ’য়রা’নির শি’কার হয়ে ফ্লাইট মিস করা প্রবাসী নারী জামিলা চৌধুরী ফেসবুক লাই’ভে এসে বলেছেন, ‘মা-বাবা চলে গেলে এই বাংলার মাটিতে আমি আর আসবো না। ফ্লাইট ধরতে তিনি ওইদিন দুপুর সোয়া ১টায় বিমানবন্দরে হাজির হন। চেক ইনের সময় তিনটি লাগেজে তার মালামাল ৮৪ কেজি ওজন হয়। নির্ধারিত ওজনের চেয়ে ৪৪ কেজি বাড়তি হওয়ায় অতিরি’ক্ত ফি আসে। এ নিয়ে বিমান কর্মকর্তাদের সঙ্গে বা’কবিত’ণ্ডা হয় জামিলার এবং তাকে অ’পমা’ন করা হয় বলে অভি’যোগ করেন তিনি।

অতিরি’ক্ত লাগেজটি রেখে শুধু একটি লাগেজ নিয়ে যাওয়ার কথা বললেও বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা তার কথা আমলে নেননি বলে অভি’যোগ করেন জামিলা চৌধুরী। নিজের ফেসবুক লাই’ভে এসে জামিলা চৌধুরী জানান, ৩ ঘণ্টা আগে বিমানবন্দর পৌঁছানোর পরও কর্মকর্তাদের অস’হযো’গিতার কারণে তাকে রেখেই প্লেন ছেড়ে চলে যায়।

এর আগে নির্ধারিত সময়ে বাংলাদেশ বিমানের কাউন্টারে পৌঁছালেও দায়িত্বরত কর্মকর্তা জামিলা চৌধুরীর কাছে ‘লোকেটর ফরম’ চান। তখন নিজ মোবাইলে ‘লোকেটর’ ফরমটি দেখালে প্রিন্ট কপি চান এক কর্মকর্তা। বারকো’ডযু’ক্ত লোকেটর ফরমে প্রিন্ট কপি বাধ্যতামূলক হতে পারে না- এ নিয়ে বা’কবিত’ণ্ডা হয় দুইপক্ষের।

জামিলা জানান, এখন সবকিছুই ডিজিটালি চলছে। কিন্তু বিমানের ওই কর্মকর্তা তা মানেননি। বা’কবিত’ণ্ডার পর লোকেটর ফরম প্রিন্ট করার জন্য যান জামিলা। কিন্তু সেখানে দীর্ঘ লাইন থাকায় তা প্রিন্ট করাতে পারেননি তিনি। এরপর তার লাগেজে অতিরিক্ত মালামালের জন্য কর্মকর্তা অ’নৈতিক ভাবে টাকা দা’বি করেন।

ঐ নারীকে হ’য়রা’নির অভি’যোগে অভিযু’ক্ত দুই কর্মকর্তার বি’রু’দ্ধে শা’স্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ। একজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও আরেকজনকে প্র’ত্যাহা’র করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। ঘটনাটি খ’তিয়ে দেখতে তিন সদস্যের তদ’ন্ত কমিটি গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*