তালেবানের সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগি চায় আফগান সরকার!

প্রেসিডেন্ট ঘানি। উজবেকিস্তান ও তাজিকিস্তানের সীমান্তবর্তী অঞ্চলে মাজার-ই-শরিফ শহরটি অবস্থিত। এ শহরের নিয়ন্ত্রণ হারালে উত্তর আফগানিস্তান থেকে সরকারের নিয়ন্ত্রণ পুরোপুরি হারাবে।কাতারের রাজধানী দোহায় আফগানিস্তানে লড়াই-সংঘাত বন্ধ করতে আফগান সরকারের আলোচনাকারীরা তালেবানদের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ভাগাভাগির একটি প্রস্তাব দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার আফগান সরকারের আলোচনাকারীদের একটি সূত্র বার্তাসংস্থা এএফপিকে এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্র বলছে, ‘হ্যা, মধ্যস্থতার অংশ হিসেবে কাতারে একটি প্রস্তাব উপস্থাপন করেছে সরকার। দেশে সহিংসতা বন্ধ করতে তালেবানদের ক্ষমতা ভাগাভাগির একটি প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।’ বৃহস্পতিবার কাবুল থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আফগানিস্তানের প্রাদেশিক রাজধানী গজনির দখল নেয় তালেবান। আল জাজিরা খবরে জানা গেছে, এটা আফগান সরকারি বাহিনীর হাতছাড়া হওয়া দশম প্রাদেশিক রাজধানী শহর।

বিবিসি জানিয়েছে, দুই পক্ষের মধ্যে তীব্র লড়াইয়ের প্রেক্ষাপটে আফগানিস্তান সেনাবাহিনীর প্রধানকে পরিবর্তন করা হয়েছে। এ পরিবর্তন এমন এক সময় এলো যখন তালেবান বিদ্রোহীরা একের পর এক এলাকা দখল করছে। দেশটির ৩৪টি প্রাদেশিক রাজধানীর মধ্যে ১০টির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবানরা।

দেশটির সেনাপ্রধান ওয়ালি মোহাম্মদ আহমেদজাইকে অপসারণ করার খবর সম্পর্কেও বিবিসি বুধবার নিশ্চিত হয়েছে। তিনি জুন মাসে সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। ২০ বছরের সেনা অভিযান শেষে গত মাসে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য বিদেশি বাহিনীর অনেক সদস্য প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। চলতি মাসের ৩১ তারিখের মধ্যে সব সেনা প্রত্যাহার করে নেয়া হবে। জাতিসংঘের হিসেব অনুযায়ী, শুধু গত মাসেই আফগানিস্তানে এক হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

ক্রমে জটিল হওয়া পরিস্থিতির মধ্যে গতকাল বুধবার প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি মাজার-ই-শরিফ শহরে উজবেক যোদ্ধাদের নেতা আবদুল রশিদ দস্তুম এবং তাজিক গোষ্ঠীর নেতা আতা মোহাম্মদ নুরের সাথে নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা করেন।

আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীর উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রেসিডেন্ট ঘানি এর আগে কখনো এ নেতাদের সমর্থন করেননি। কিন্তু এখন তার প্রয়োজনের সময় এ নেতাদেরকেই কাছে টানছেন তিনি। এ সপ্তাহের শুরুর দিকে সরকার পন্থী মিলিশিয়া গোষ্ঠীকেও অস্ত্র দিতে রাজি হয়েছেন

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*